ঢাকা, বুধবার ১৯ জুন ২০২৪, ১০:৫২ অপরাহ্ন
‘শিগগিরই অরক্ষিত সীমান্তকে নজরদারির আওতায় আনা হবে’
ডেস্ক রিপোর্ট ::

একুশ শতকের চ্যালেঞ্জ মােকাবিলায় বিজিবিকে একটি ত্রিমাত্রিক বাহিনী হিসেবে গড়ে তােলা হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ সময় খুব শিগগিরই প্রায় দেড় শত কিলােমিটার অরক্ষিত সীমান্তকে নজরদারির আওতায় আনা হবে বলেও ঘোষণা দেন প্রধানমন্ত্রী। আজ রোববার সকাল ১০ টায় রাজধানীর পিলখানায় বিজিবি সদর দপ্তরে আনুষ্ঠানিক কুচকাওয়াজের মাধ্যমে বিজিব দিবস-২০২১ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগ দিয়ে  তিনি এ ঘোষণা দেন।

মুক্তিযুদ্ধে কৃতিত্বপূর্ণ ভূমিকা পালনের কথা স্মরণ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ইপিআরের ১২ হাজার সদস্য যুদ্ধে সরাসরি অংশ নেন। পিলখানায় তখন পূর্ব প্রস্তুতি ছিলো। ইপিআরের দুজন সদস্য সকল পুলিশ স্টেশনে জাতির পিতার বক্তব্য পৌঁছে দেন। দেশ স্বাধীনের পর জাতির পিতা ইপিআর থেকে এই বাহিনীর নাম পরিবর্তন করে বিডিআর করেন।

বিজিবি দিবসের অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে অরক্ষিত সীমান্তকে নজরদারির আওতায় আনার ঘোষণাও দেন শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ভারত এবং মায়ানমার সীমান্তে চারটি ব্যাটালিয়ন এবং সুন্দরবন এলাকায় ২টি ভাসমান বিওপিসহ মােট ৬২টি বিওপি সৃজনের মাধ্যমে প্রায় সাড়ে ৫শ’ কিলােমিটার অরক্ষিত সীমান্তের মধ্যে ৪ শতাধিক কিলােমিটার সীমান্ত ইতিমধ্যে নজরদারীর আওতায় আনা হয়েছে। খুব শীঘ্রই অবশিষ্ট প্রায় দেড় শত কিলােমিটার অরক্ষিত সীমান্তকে নজরদারির আওতায় আনা হবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭৩ সালের ৮ জানুয়ারি পিলখানায় তৎকালীন বাংলাদেশ রাইফেন্স এর ১ম
ব্যাচের শিক্ষা সমাপনী কুচকাওয়াজ পরিদর্শন ও অভিবাদন গ্রহণ করেন। তিনি এ বাহিনীকে যুগােপযােগী করে গড়ে তুলতে এর পুনর্গঠন ও আধুনিকায়নের কাজ শুরু করেন। জাতির পিতার পদাঙ্ক অনুসরণ করে বর্তমান আওয়ামীলীগ সরকার ২০০৯ সাল থেকে এ বাহিনীকে যুগােপযােগী সীমান্তরক্ষী বাহিনী হিসেবে গড়ে তােলার লক্ষ্যে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ আইন-২০১০’ প্রণয়নসহ ‘বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ ভিশন-২০৪১’ এর পরিকল্পনা গ্রহণ করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *