ঢাকা, সোমবার ২৭ মে ২০২৪, ০৩:০২ পূর্বাহ্ন
মাদকাসক্ত নিরাময় কেন্দ্রেই চলতো মাদক ব্যবসা
ডেস্ক রিপোর্ট ::

মাদকাসক্তদের পুনর্বাসনের জন্য কেন্দ্র খোলা হলেও সেখানে চলতো শারীরিক, মানসিক ও যৌন নির্যাতন। কেন্দ্রে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের কাছে থেকে হাতিয়ে নিতো লাখ লাখ টাকা। কোনো রোগী তাদের অভিভাবকদের কাছে নির্যাতনের অভিযোগ করলে তার উপর নির্যাতনের মাত্রা আরও বেড়ে যেত। নিরাময় কেন্দ্রের মালিক বাধনসহ ওই কেন্দ্রের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীরাও ছিলেন মাদকাসক্ত।

মঙ্গলবার (৪ জানুয়ারি) সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত মহানগরের ভুরুলিয়ার কালাসিকদারের ঘাট এলাকায় ‘ভাওয়াল মাদকাসক্ত পুনর্বাসন কেন্দ্র’ নামক একটি প্রতিষ্ঠানে র‍্যাব ও মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের অভিযানে এমন তথ্য পাওয়া গেছে। যেখানে বৈধতার আড়ালে মাদকের ব্যবসা চালাতো কথিত নারী সাংবাদিক বাধন। এ ঘটনায় ওই নারী সাংবাদিকসহ আরও চারজনকে আটক করা হয়েছে।

র‍্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন সাংবাদিকদের বলেন, পুনর্বাসন কেন্দ্রে যারা চিকিৎসা নিতে এসেছেন তাদেরকে শারীরিক, মানসিক নির্যাতন এবং যৌন হয়রানির অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ মাদকাসক্ত কেন্দ্র যারা পরিচালনা করতো তারা নিজেরাই মাদকাসক্ত। এছাড়াও এই কেন্দ্রটি থেকে ৪২০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করার কথাও জানান তিনি।

তিনি আরও জানান, বাধন নামের ওই কথিত নারী সাংবাদিক ২০০৯ সাল থেকে ওই মাদকাসক্ত নিরাময় কেন্দ্রটি পরিচালনা করে আসছেন। অনুমোদন ছাড়াই শুরু করলেও পরে অনুমোদন নেয়া হয়। এরপর বাধন কোনো প্রকার নিয়ম-কানুন না মেনে কেন্দ্রটি পরিচালনা করতে থাকেন।

র‍্যাব জানায়, মাদকাসক্ত নয় এমন সুস্থ ব্যক্তিদেরও জোর করে এখানে রাখা হয়েছে। বিভিন্ন সময় মারধরও করা হয়েছে। শরীরে জখমের দাগ পাওয়া গেছে এমন সাত জনকে পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। যেসব সেবাগ্রহীতা এসব কর্মকাণ্ড নিয়ে কথা বলতে চেয়েছে তাদেরকে সন্ত্রাসী দিয়ে পেটানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *