ঢাকা, বৃহস্পতিবার ৩০ মে ২০২৪, ০৪:৫০ অপরাহ্ন
ভোট শুরুর আগেই নৌকার প্রার্থীর মৃত্যু, নির্বাচন স্থগিত
ডেস্ক রিপোর্ট ::

কুমিল্লার দেবীদ্বার উপজেলার ভানী ইউনিয়ন পরিষদে (ইউপি) আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মো. নুরুজ্জামান ভূঁইয়া মুকুল গতকাল রোববার রাত ১০টার দিকে মারা গেছেন। এ কারণে এই ইউপিতে চেয়ারম্যান, সাধারণ সদস্য ও সংরক্ষিত মহিলা সদস্যসহ সব পদে ভোট গ্রহণ স্থগিত করেছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা আজহারুল ইসলাম।

গতকাল রাত ১১টার দিকে গণবিজ্ঞপ্তি জারি করে ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়। আজ সোমবার সপ্তম ধাপে এই ইউপিতে ভোটগ্রহণের কথা ছিল। আজ দেবীদ্বার উপজেলার ১৫টি ইউনিয়নের মধ্যে ১৪টি ইউনিয়নে ভোট হচ্ছে।

মো. নুরুজ্জামান ভুঁইয়া মুকুল ভানী ইউনিয়নের নোয়াগাও গ্রামের বাসিন্দা। তিনি ওই ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের সভাপতি ও বর্তমান চেয়ারম্যান।

মুকুলের ভাই কামরুল ইসলাম দাবি করেন, রোববার সন্ধ্যায় নোয়াগাঁও প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে স্বতন্ত্র প্রার্থী হাজী জালাল উদ্দিন (মোটরসাইকেল) ও তার লোকজন একত্রিত হয়। এ সময় জালালের ভাগিনা চান্দিনা উপজেলার ছাত্রদলের সভাপতি কাইয়ুমকে দেখে বহিরাগত হিসেবে মুকুল প্রতিবাদ জানালে তাদের উভয়ের মধ্যে কথা-কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে কাইয়ুম মুকুলের বুকে লাথি মারলে সঙ্গে সঙ্গে তিনি নিচে লুটিয়ে পড়েন। পরে তাকে উদ্ধার করে কুমিল্লার একটি বেসরকারি হাসপাতালে আনার পর চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

তবে স্বতন্ত্র প্রার্থী হাজী জালাল উদ্দিন বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, দুই পক্ষের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়েছে। তবে লাথি মারার বিষয়টি সত্য নয়। সে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে। পুলিশ তার ভাগিনা কাইয়ুমকে আটক করে থানায় নিয়ে গেছে বলেও তিনি জানান।

রিটার্নিং কর্মকর্তা আজহারুল ইসলাম বলেন, চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী মারা যাওয়ায় স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) নির্বাচন বিধিমালা ২০১০–এর বিধি ২০–এর(১) অনুযায়ী প্রথমে চেয়ারম্যান পদে ভোট বাতিল করা হয়। এরপর নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের নির্দেশনা মোতাবেক পুরো ভানী ইউনিয়নের ভোট স্থগিত করা হয়। পরে এই নির্বাচনের তারিখ দেওয়া হবে।

দেবিদ্বার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আরিফুর রহমান জানান, এ ঘটনায় আবদুল কাইয়ুমকে আটক করা হয়েছে। পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করে দেখছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *