ঢাকা, বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০১:৪০ পূর্বাহ্ন
ভোট কেনাবেচা ঠেকাতে রাত জেগে পাহারা
ডেস্ক রিপোর্ট ::

পঞ্চম ধাপে বুধবার (৫ জানুয়ারি) ঝিনাইদহের শৈলকুপায় ১২ ও হরিণাকুন্ডু উপজেলার আট ইউনিয়নে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। শৈলকুপায় ১১২ ও হরিণাকুন্ডুতে ৮২ কেন্দ্রে ভোট নেওয়া হবে। এসব কেন্দ্রের ৮০ ভাগ ঝুকিপূর্ণ চিহ্নিত করেছে প্রশাসন।

তফসিল ঘোষণার পর থেকে নির্বাচনী এলাকায় প্রচারণাকে কেন্দ্র করে শৈলকুপায় দুই হত্যার ঘটনাসহ একের পর এক ধাওয়া ও পাল্টাধাওয়া, ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। এতে আতঙ্ক কাজ করছে ভোটারদের মধ্যে। এজন্য ভোট ডাকাতি ঠেকাতে রাত জেগে পাহারা দিচ্ছেন ভোটাররা।

 

সোমবার (৩ জানুয়ারি) রাত থেকে প্রায় দুই উপজেলার প্রতিটি পাড়া-মহল্লায় চলছে এই পাহারা। চলবে ভোটের দিন ভোর পর্যন্ত। সোমবার রাতে এ দুই উপজেলার বিভিন্ন নির্বাচনী এলাকা পরিদর্শনে গিয়ে দেখা যায়, বিভিন্ন প্রার্থীর সমর্থকরা রাস্তারা পাশে, বাড়ির পেছনে, দুই তিনজন মিলে চায়ের দোকানে জেগে রয়েছেন। এসময় কোনো গাড়ি বা অপরিচিত মানুষ দেখলেই তারা নানা প্রশ্ন করছেন।

হরিণাকুন্ডু উপজেলার জটারখাল এলাকার আব্দুল খালেক নামের এক ভোটার জাগো নিউজকে বলেন, ভোটের আগের রাতে ভোটারদের হাতে টাকা গুঁজে দিয়ে প্রার্থীর পক্ষে ভোট প্রার্থনা করেন। কেউ যেন সেই টাকার বিনিময়ে নিজেকে বিক্রি না করেন সেজন্য আমরা পাহারা দিচ্ছি।

jagonews24

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা চোর-ডাকাত নয়, ভোট বেচাকেনা ঠেকাতে রাত জেগে পাহারা দিচ্ছি। প্রচণ্ড ঠান্ডায় রাত জাগা কষ্টকর হলেও নির্বাচনের আগের রাত পর্যন্ত এ পাহারা চলবে।’

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক হরিণাকুন্ডু ও শৈলকুপা উপেজলার ইউনিয়নের কয়েকজন চেয়্যারম্যান প্রার্থী বলেন, রাতের আঁধারে টাকা দিয়ে কেউ যেন ভোট কেনাবেচা করতে না পারেন, সেজন্য কর্মী-সমর্থকরা মোড়, পাড়া-মহল্লায় পাহারা বসিয়েছেন।

শৈলকুপা উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা জুয়েল আহম্মেদ জানান, সুষ্ঠুভাবে ভোটগ্রহণের জন্য প্রতিটি কেন্দ্রে পর্যাপ্ত পরিমাণে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের মোতায়েন করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *