ঢাকা, বুধবার ১৯ জুন ২০২৪, ১০:৫৯ অপরাহ্ন
পার্বত্য চট্টগ্রামে প্রত্যাহার করা সেনাক্যাম্পে মোতায়েন করা হবে এপিবিএন: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
ডেস্ক রিপোর্ট ::

পার্বত্য চট্টগ্রামে যেসব স্থানে সেনাবাহিনীর ক্যাম্প প্রত্যাহার করা হয়েছে, সেখানে এপিবিএন পুলিশ ক্যাম্প মোতায়েন করা হবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।

তিনি বলেন, ‘পার্বত্য চট্টগ্রামে শান্তি প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে সেনাবাহিনী দীর্ঘকাল ধরে কাজ করছে। তাদের সাথে সাথে আলাপ-আলোচনা করে এবং চুক্তির আলোকে এই পরিত্যক্ত ক্যাম্পগুলোতে পুলিশ ক্যাম্প স্থাপনের এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’

বুধবার রাতে রাঙামাটি জেলা প্রশাসক সম্মেলন কক্ষে তিন পার্বত্য জেলার বিশেষ আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত বিশেষ সভা শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এ কথা বলেন।

আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামের শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষায় যে বাহিনী প্রয়োজন হবে সেই বাহিনী মোতায়েন করা হবে। পার্বত্য চট্টগ্রামে শান্তি শৃঙ্খলা রক্ষায় প্রয়োজনে র্যা বসহ আরও বেশি পুলিশ মোতায়েন করা হবে। পুলিশ বাহিনী এখন আগের চেয়ে অনেক বেশি সক্ষম। পুলিশ এখন যে কোন চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে প্রস্তুত ।

বৈঠকে পার্বত্য শান্তি চুক্তির ভূমি কমিশনসহ পাবর্ত্য শান্তি চুক্তি বাস্তবায়নের নানা দিক নিয়ে আলোচনা হয়েছে বলে জানান তিনি।

সভায় অন্যান্যর  মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পার্বত্যমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং, পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদ চেয়ারম্যান জ্যোতিরিন্দ্র বোধিপ্রিয় লারমা (সন্তু লারমা), টাস্খফোর্স চেয়ারম্যান কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি, রাঙামাটি আসনের সংসদ সদস্য  দীপংকর তালুকদার, সংরক্ষিম মহিলা আসনের সাংসদ বাসন্তী চাকমা, মন্ত্রী পরিষদের সচিব খন্দখার আরোয়ারুল ইসলাম, চট্টগ্রাম ২৪ পদাতিক ডিভিশনের জিওসি মেজর জেনারেল মো. সাইফুল আবেদীন, পুলিশ প্রধান বেনজির আহমেদ, বিজিবির ডিজি মেজর জেনারেল শাকিল আহমেদ, ডিজিএফআইয়ের প্রধান মেজর জেনারেল আহম্মদ তাবরেজ শামস চৌধুরী, এনআইএসআইয়ের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল টিএম জোবায়ের, পার্বত্য সচিবসহ তিন পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, তিন পার্বত্য জেলা প্রশাসক সামরিক ও বেসামরিক প্রশাসনের উর্ধতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *