ঢাকা, মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ১০:১৫ পূর্বাহ্ন
পাকিস্তানের নয়া প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফ
ডেস্ক রিপোর্ট ::

পাকিস্তানের ২৩তম প্রধানমন্ত্রী হলেন পাকিস্তান মুসলিম লিগ-নওয়াজ (পিএমএল-এন) এর সভাপতি শাহবাজ শরিফ। সোমবার (১১ এপ্রিল) স্থানীয় সময় অনুযায়ী দুপুরে ইমরান খানের দল পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফের (পিটিআই) সংসদ সদস্যরা পদত্যাগের ঘোষণা দেয়। এরপর দেশটির নতুন প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনে ভোটাভুটি শুরু হওয়ার আগে সংসদ ভবন থেকে পিটিআই’র সাংসদরা ওয়াক আউট করে। আর তাতে প্রধানমন্ত্রী হওয়ার লড়াইয়ে শাহবাজ শরিফের পথের সব কাঁটা দূর হয়ে যায়।

শাহবাজ শরিফের পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী পদের জন্য মনোয়ন জমা দিয়েছিলেন পিটিআই নেতা শাহ মেহমুদ কোরেশি। কিন্তু পিটিআই ভোটাভুটি বর্জন করায় একতরফাভাবে ১৭৪ আইনপ্রণেতার সমর্থন পান ৭০ বছর বয়সী শাহবাজ।

প্রধানমন্ত্রী হয়েই এ জয় জনগণের বিজয় আখ্যা দিয়ে পাকিস্তানের অর্থনীতি পুনরুদ্ধারের ঘোষণা দেন শাহবাজ শরিফ। যদিও সম্মিলিত বিরোধী জোটের সমর্থন থাকায় মোটামুটি নিশ্চিতই ছিল, শাহবাজ শরিফ হতে চলেছেন পাকিস্তানের ২৩-তম প্রধানমন্ত্রী।

পাকিস্তানের নবনির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফ বলেন, আজ সত্যের জয় হয়েছে। জোটের মাধ্যমে ক্ষমতায় ছিল ইমরান খান, জনগণের ভোটে নয়। কোনো বিদেশি ষড়যন্ত্র নয়, জনগণই তাকে বিদায় করেছে। এই ৩ বছরে দেশকে তলানীতে নিয়ে গেছে ইমরান। অথচ তার বিদায়ের পর চাঙা হচ্ছে পুঁজিবাজার। ডলারের বিপরীতে রুপি শক্তিশালী হয়েছে। আশা করি, বিদেশি ঋণের নির্ভরতা কমিয়ে স্বনির্ভর পাকিস্তান গড়তে পারবো।

এর আগে, অধিবেশন শুরুর পরপরই বক্তব্য দেন আলোচিত ডেপুটি স্পিকার কাসেম সুরি। তুলে ধরেন একটি সিলগালা চিঠি, দাবি করেন কারা কীভাবে ষড়যন্ত্র করেছেন সব উল্লেখ আছে সেখানে। আর পিটিআই নেতা মেহমুদ কোরেশির দাবি, আবারও শক্তিশালী হয়ে ফিরবেন ইমরান খান।

পাকিস্তানের অন্যতম ধনী ব্যবসায়ী পরিবারের সদস্য শাহবাজের রাজনৈতিক ক্যারিয়ার শুরু ১৯৮৮ সালে প্রাদেশিক পরিষদের সদস্য হওয়ার মাধ্যমে। এরপর তিন দফায় পাঞ্চাবের মুখ্যমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন তিনি। এতদিন বড় ভাই নওয়াজ শরিফের ছায়ায় থাকা শাহবাজ শরিফ নিজেই এবার পাকিস্তানের রাজনীতির মূল চরিত্রে। শরিফ পরিবারের দ্বিতীয় ব্যক্তি হিসেবে প্রধানমন্ত্রীর আসনে বসতে যাচ্ছেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *