ঢাকা, মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ১১:০৯ পূর্বাহ্ন
উখিয়ায় চাঞ্চল্যকর হাসান আলী হত্যা মামলার ৩ আসামী কারাগারে
ফারুক আহমদ , উখিয়া ::

উখিয়ার ভালুকিয়া পালং এলাকায় চাঞ্চল্যকর হাসান আলী হত্যা মামলার ৩ জন আসামীর জামিন বাতিল করে কারাগারে প্রেরণ করেছেন বিজ্ঞ আদালত।
সোমবার (১৩ জুন) কক্সবাজার ২ নম্বর অতিরক্ত দায়রা জজ আদালতে মামলার শুনানি শেষে আসামীদের জামিন বাতিল করেন। আসামীরা হচ্ছেন ভালুকিয়া পালংয়ের মৃত গুরা মিয়ার পুত্র জয়নাল আবেদীন, মাঝের পাড়ার গনু মিয়ার পুত্র আব্দুস সালাম ও নুরুল ইসলাম ।
বাদীর পক্ষে মামলা পরিচালনা করেন পিপি এডভোকেট ফরিদুল আলম , অতিরিক্ত পিপি এডভোকেট মোহাম্মদ সুলতানুল আলম , এডভোকেট নুরুল মোস্তফা মানিক ও এডভোকেট কফিল উদ্দিন চৌধুরী ।
আসামিদের জামিন বাতিলের বিষয়টি সত্যতা নিশ্চিত করে আইনজীবীরা জানান আগামী ২৭ জুন চাঞ্চল্যকর হাসান আলী হত্যাকাণ্ডের মামলার রায়ের দিন ধার্য করেছেন আদালত। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে , হত্যা মামলার বাদী, সাক্ষী, তদন্তকারী কর্মকর্তা, ডাক্তার ও আসামীদের শুনানীর জেরা শেষ করেছেন আদালত।
মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায় , বিগত ১৯ সেপ্টেম্বর ১৯৯৩ সাল আজ থেকে ২৯ বছর আগে উপজেলার রত্না পালং ইউনিয়নের ভালুকিয়া বাজারে সন্ত্রাসীরা প্রকাশ্যে পিটিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করে হাসান আলী কে। নিহতের পিতার নাম মৃত আলী আহমদ পল্লান।
এ ঘটনায় ২০ সেপ্টেম্বর /৯৩ স্ত্রী মিনু আরা বাদী হয়ে উখিয়া থানা ১১ জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করেন।
এজাহারে আরো উল্লেখ করা হয় , আসামি জয়নাল, সিরাজ, জসিম, আব্দুস সালাম, নুরুল ইসলাম ও দোলা মিয়া সহ অপরাপর আসামিরা হাসান আলি কে পরিকল্পিতভাবে হত্যার উদ্দেশ্যে লাঠি ও দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে হামলা চালায় । রক্তাক্ত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে হাসপাতলে ভর্তি করা হয় । পরের দিন ২০ সেপ্টেম্বর তিনি মারা যান।
নিহতের পুত্র রফিক জানান, ঘটনার দিন ভালুকিয়া বাজারে আমার পিতা হাসান আলী সুপারি বিক্রি করছিল।চিহ্নিত সন্ত্রাসীরা পূর্ব পরিকল্পিতভাবে প্রকাশ্যে জনসম্মুখে হত্যার উদ্দেশ্যে ন্যাক্কারজনকভাবে এলোপাতাড়ি হামলা চালিয়ে মারাত্মক জখম করে।উদ্ধার করতে এসে সন্ত্রাসীদের হামলায় আহত হন মিয়া হোসেন ও আবুল হাশেম। সেদিন নিহত পিতার সাথে ছেলে রফিকও সুপারি বিক্রি করছিল।
এদিকে উখিয়া থানার পুলিশ দীর্ঘ সময় তদন্ত কার্যক্রম শেষ করে আসামিদের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট প্রেরণ করেন । যার নম্বর এসটি ৮৫/৯৬।
নিহতের কলেজ পড়ুয়া ছাত্র কামরুল ইসলাম আপেল জানান , আমার পিতা কে সন্ত্রাসীরা পিটিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করেছে। তখন আমার বয়স ছিল তিন বছর । আমরা পিতা হাসান আলী হত্যা মামলার আসামীদের সর্বোচ্চ দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়ার দাবি জানাচ্ছি ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *