ঢাকা, সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৬:১৩ অপরাহ্ন
অরক্ষিত রোহিঙ্গা ক্যাম্প, বেপরোয়া রোহিঙ্গারা
মোহাম্মদ শামসুদ্দিন ::

ইদানীং রোহিঙ্গাদের অপরাধ মূলক বিভিন্ন কর্মকান্ড সাধারণ জনগনকে ভীষণ ভাবিয়ে তুলেছে। গতকাল অর্থাৎ ঈদের দ্বিতীয় দিন সদর থানার পুলিশ কক্সবাজার সমুদ্র সৈকত এলাকা থেকে ৪৭৬ জন রোহিঙ্গাকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়। এরপরও বিপুল পরিমাণ রোহিঙ্গা ঈদকে পুঁজি করে ক্যাম্প থেকে বেরিয়ে দেশের আনাচে কানাচে ছড়িয়ে পড়েছে বলে বিশ্বস্ত সূত্রে জানা গেছে। কিন্তু ক্যাম্পের কাঁটা তারের বেষ্টনী ভেদ করে তারা কিভাবে বের হয়ে যাচ্ছে তা বড়ই চিন্তার বিষয়।

এদের মধ্যে বিশাল একটি অংশ সাগর পথে মালয়েশিয়া যাওয়ার জন্য ক্যাম্প থেকে বের হয়েছে বলে আরেক সূত্রে জানা যায়। সাধারণ জনগনের মতে এই উদ্দেশ্যে তাদের একটি অংশ এখনও বিভিন্ন গ্রামে অবস্হান করছে বলে জানা যায়।

গত সপ্তাহে রোহিঙ্গারা মায়ানমার সরকারের সাথে আঁতাত করে প্রায় ২০ হাজার কোটি টাকার বিশাল একটি অস্ত্র চালান আনছে বলে বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্হা ও গণমাধ্যমের মাধ্যমে জানা যায়। যা কিনা রোহিঙ্গারা বাংলাদেশের নাগরিকত্ব সহ দেশের একটি অংশ তাদের করে নেওয়ার জন্য বাংলাদেশ সরকারের সাথে যুদ্ধে লিপ্ত হবে বিশেষজ্ঞদের ধারণা।

এছাড়াও রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ভয়ংকর মাদক ইয়াবা ও আইসের ছড়াছড়ি যা প্রতিনিয়ত বিভিন্ন খবরা খবর ও আইন শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর মাধ্যমে প্রতিনিয়ত জানা যায়।

এমতাবস্থায় রোহিঙ্গাদের এহেন কর্মকান্ড সাধারণ জনগনকে ভীষণ ভাবিয়ে তুলেছে। তাদের মতে রোহিঙ্গা ক্যাম্পের দায়িত্ব আসলে কার হাতে বা ক্যাম্পের আইন শৃংখলা রক্ষার দায়িত্ব আসলে কার.? RRRC, APBN, NGO, রোহিঙ্গা নাকি অন্যকোন সন্ত্রাসী জঙ্গীগোষ্টীর.?

বেপরোয়া রোহিঙ্গাদের দায় দায়িত্ব বাংলাদেশ সেনাবাহিনী অথবা RAB কে দিলে তারা এধরনের অপরাধ মূলক কর্মকান্ড থেকে বিরত থাকবে বলে সাধারণ জনগন মনেকরে। অন্যথায় সরকার ও জনগনকে বিশাল মাশুল গুনতে হতে পারে বলে বিজ্ঞজনের ধারণা।

 

লিখাটি শামসুদ্দিনের ফেইসবুক আইডি থেকে নেওয়া 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *