ঢাকা, শনিবার ১৩ জুলাই ২০২৪, ০৩:৪৭ অপরাহ্ন
লিটনের কারণেই ২৩ বলে ৪০ রান করার সুযোগ পান পুরান
স্পোটস ডেস্ক ::

মাত্র ২ রানেই নিকোলাস পুরানকে আউট করার সুযোগ তৈরি করেন সাকিব আল হাসান। দাউন দ্য উইকেটে খেলতে গিয়ে মিস করেন পুরান। কিন্তু উইকেটকিপার লিটন  স্টাম্পিং মিস করেন।

সেই সুযোগ কাজে লাগিয়ে ২৩ বলে এক চার আর ৪টি ছক্কায় ৪০ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেন নিকোলাস। ১৮.১ ওভারে দলীয় ১১৯ রানে শরিফুলের শিকার হয়ে ফেরেন তিনি। ঠিক পরের বলে ব্যাটিং তাণ্ডব চালিয়ে যাওয়া রোস্টন চেজকেও ফেরান শরিফুল। সাজঘরে ফেরার আগে ৪৬ বলে ৩৯ রান করেন।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের আরও একটি উইকেট পতন। ১২.৪ ওভারে ৬২ রানে ৪ উইকেট হারায় ক্যারিবীয়রা। ১৬ বলে ৮ রান করে রিটায়ার্ড হার্ট হয়ে ফেরেন উইন্ডিজ অধিনায়ক কায়রন পোলার্ড। ব্যাটসম্যানরা আসা-যাওয়ার মিছিলে অংশ নেওয়ায় চাপের মধ্যে পড়ে যায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

দলকে চ্যালেঞ্জিং স্কোর উপহার দিতে লড়াই করছেন নিকোলাস পুরান ও রোস্টন চেজ। ১৬ ওভারের খেলা শেষে উইন্ডিজের সংগ্রহ ৯৯/৪ রান।

শুক্রবার আরব আমিরাতের শারজা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে প্রথমে ব্যাটিংয়ে পাঠায় বাংলাদেশ দল।

ইনিংসের তৃতীয় ওভারে বোলিংয়ে এসেই সাফল্য পান মোস্তাফিজুর রহমান। এই কাটার মাস্টারের বলে মুশফিকুর রহিমের বলে ক্যাচ তুলে দিয়ে ফেরেন ক্যারিবীয় তারকা ওপেনার এভিন লুইস।

দলীয় পঞ্চম আর নিজের দ্বিতীয় ওভারে বোলিংয়ে এসেই ক্যারিবীয় ব্যাটিং দানব ক্রিস গেইলকে বোল্ড করেন মেহেদি হাসান। ৪.২ ওভারে দলীয় ১৮ রানে সাজঘরে ফেরার আগে ১০ বলে মাত্র ৪ রান করার সুযোগ পান গেইল। এরপর ৬.৪ ওভারে দলীয় ৩২ রানে সিমরন হেটমায়ারকে ক্যাচ তুলতে বাধ্য করেন মেহেদি হাসান।

১২.৩ ওভারে দলীয় ৬২ রানে রিটায়ার্ড হার্ট হয়ে ফেরেন উইন্ডিজ অধিনায়ক কায়রান পোলার্ড। এরপর স্কোর বোর্ডে কোনো রান যোগ হওয়ার আগেই সাজঘরে ফেরেন তারকা অলরাউন্ডার আন্দ্রে রাসেল। তাকে নিজের বলে দুর্দান্ত ফিল্ডিংয়ে সাজঘরে ফেরান তাসকিন আহমেদ।

ব্যাটসম্যানদের েএই আসা-যাওয়ার মিছিলে একাই লড়াই করেন রোস্টন চেজ। তাকে আবশ্য ১৪তম ওভারেই সাজঘরে ফেরানোর সুযোগ তৈরি করেছিলেন সাকিব আল হাসান। তার বলে মিডউইকেটে ক্যাচ তুলে দিয়েও মেহেদি হাসানের কল্যাণে ২৭ রানে লাইফ পান রোস্টন চেজ।

বাংলাদেশ: মোহাম্মদ নাঈম, লিটন দাস, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, আফিফ হোসেন, সৌম্য সরকার, মেহেদি হাসান, শরিফুল ইসলাম, তাসকিন আহমেদ ও মোস্তাফিজুর রহমান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *