ঢাকা, বুধবার ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ০৬:৫২ পূর্বাহ্ন
পেঁয়াজ আসছে বিকল্প উৎস থেকে, ২ দিনে এলো ২২৬ টন
উখিয়া নিউজ ডেস্ক :

ভারতের পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ ঘোষণার পর বিকল্প উৎস থেকে পেঁয়াজ আমদানি শুরু করেছেন চট্টগ্রামের ব্যবসায়ীরা। চীন, পাকিস্তান থেকে গত দুই দিনে পেঁয়াজ এসেছে ২২৬ টন। এর মধ্যে সোমবার পাকিস্তান থেকে ৫৮ মেট্রিক টন পেঁয়াজ আমদানি হয়েছে।

মো. শাহ আলম বলেন, ’সোমবার পাকিস্তান থেকে ৫৮ টন পেঁয়াজ আমদানি হয়েছে। চট্টগ্রাম বন্দরে পেঁয়াজগুলো আসার পর সেগুলো পরীক্ষা করে খালাসের জন্য আমরা অনুমতি দিয়েছি। আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান ইতোমধ্যে পেঁয়াজগুলো খালাস করে নিয়েও গেছে।’

তিনি বলেন, ’রবিবার চীন থেকে পেঁয়াজ এসেছে ১৬৮ মেট্রিক টন। ওই পেঁয়াজগুলোও গতকাল খালাস করে নিয়ে গেছে আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান। আমাদের কাছে যত দূর তথ্য আছে আরও পেঁয়াজ আসার পথে রয়েছে।‘

বৃহস্পতিবার (৭ ডিসেম্বর) প্রতিবেশী দেশ ভারতের পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ ঘোষণার পর দেশের বাজারে পেঁয়াজের দাম বাড়তে শুরু করে। এক দিনের ব্যবধানে কেজিতে ১০০ টাকা বেড়ে ভোগ্যপণ্যের অন্যতম বাজার খাতুনগঞ্জে প্রতি কেজি পেঁয়াজ বিক্রি হয় ২০০ থেকে ২২০ টাকায়। একই সময়ে পেঁয়াজের বাজার অস্থির হয়ে ওঠায় পেঁয়াজশূন্য হয়ে পড়ে খাতুনগঞ্জের আড়তগুলো। শনিবারের পর রবিবার, সোমবারও খাতুনগঞ্জে একই অবস্থা ছিল। এমতাবস্থায় চীন ও পাকিস্তান থেকে পেঁয়াজ আসা শুরু হওয়ায় বাজারে কিছুটা স্বস্তি ফিরবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, এক সপ্তাহের মধ্যে পেঁয়াজের বাজার স্থিতিশীল হয়ে যাবে। সোমবার বাজারে মেহেরপুর থেকে মুড়িকাটা পেঁয়াজ আসা শুরু হয়েছে। একই সময়ে চীন, পাকিস্তান থেকে পেঁয়াজ আসছে। তাই পেঁয়াজশূন্য বাজারে এখন আবার পেঁয়াজ সরবরাহ শুরু হয়েছে। সরবরাহ বাড়ায় পেঁয়াজের দামও কমতে শুরু করেছে।

খাতুনগঞ্জের ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন, প্রথম দিন সোমবার বাজারে এক ট্রাক পেঁয়াজ এসেছে বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। মঙ্গলবার থেকে বাজারে পুরোদমে মুড়িকাটা পেঁয়াজ পাওয়া যাবে।

জানতে চাইলে খাতুনগঞ্জের মেসার্স আল-আরব বাণিজ্যালয়ের পরিচালক মাহফুজুল আলম রুবেল প্রতিদিনের বাংলাদেশকে বলেন, ’খাতুনগঞ্জে মুড়িকাটা পেঁয়াজ আসা শুরু হয়েছে। আজ মেহেরপুর থেকে এক ট্রাক পেঁয়াজ এসেছে। সোমবার রাতে আরও কয়েক ট্রাক মুড়িকাটা পেঁয়াজ ঢুকবে। তবে দাম একটু বেশি। প্রতি কেজির দাম পড়বে ১২০ থেকে ১৩০ টাকা।’

খাতুনগঞ্জের আরেক পেঁয়াজ ব্যবসায়ী আব্দুল মান্নান বলেন, ’ভারত থেকে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ ঘোষণার পর অনেকে এখন চীন থেকে আমদানি করার চেষ্টা করছে। গত দুই দিনে প্রায় আড়াইশ কন্টেইনার পেঁয়াজ আমদানির জন্য এলসি খুলেছে আমদানিকারকরা। ১০ থেকে ১৫ দিনের মধ্যেই এই পেঁয়াজ বাজারে চলে আসবে। একই সময়ে মুড়িকাটা পেঁয়াজ বাজারে এলে তখন বাজারে পেঁয়াজের এই সংকট আর থাকবে না।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *