ঢাকা, বুধবার ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ০৬:০৯ পূর্বাহ্ন
চালুর পরদিনই ঢাকা-কক্সবাজার রেললাইনে নাট-বল্টু খুলল কে
উখিয়া নিউজ ডেস্ক :

কক্সবাজার-চট্টগ্রাম রেলপথে রামু উপজেলার রশিদনগর ইউনিয়নের কাহাতিয়া পাড়ায় রেললাইনের বিটের নাট-বল্টু খুলে নিয়ে গেছে দুর্বৃত্তরা। পরে রেল কর্তৃপক্ষ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাইন মেরামত করে। এ কারণে কক্সবাজার থেকে ৩০ মিনিট দেরিতে ছাড়তে হয় ‘কক্সবাজার এক্সপ্রেস’ ট্রেন। এই রুটে ট্রেন চালুর পরদিনই এমন ঘটনাকে চুরি হিসেবে দেখছেন না সংশ্লিষ্টরা। এর পেছনে অন্য কোনো কারণ আছে কি না, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। 

শনিবার (২ ডিসেম্বর) সকাল ৭টার দিকে রেললাইনে এই ত্রুটি খবর পান বলে কক্সবাজার রেল স্টেশন মাস্টার মোহাম্মদ গোলাম রব্বানী প্রতিদিনের বাংলাদেশকে জানিয়েছেন।

শুক্রবার বহুল কাঙ্ক্ষিত ৪৮০ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের ঢাকা-কক্সবাজার রেলপথে আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয় ট্রেনের যাত্রা। দুপুর ১২টা ৪৫ মিনিটে সৈকতের শহর কক্সবাজারের আইকনিক রেলস্টেশন থেকে ১ হাজার ২০ যাত্রী নিয়ে প্রথমবার ঢাকা পৌঁছায় ২০ বগির ‘কক্সবাজার এক্সপ্রেস’

স্টেশন মাস্টার গোলাম রব্বানী বলেন, ‘গোয়েন্দা সংস্থার মাধ্যমে রেললাইনের বিটের নাট-বল্টু খুলে ফেলার খবর পাই। পরে আমি রেল অধিদপ্তরসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে জানাই। তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন রেল প্রকৌশলসহ নির্মাণকাজে নিয়োজিত প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা।’

তিনি জানান, শ্রমিকরা রেললাইনের বিটের খুলে ফেলা নাট-বল্টু পুনঃসংযোজনের কাজ শেষ করার পর বেলা ১টায় কক্সবাজার থেকে ট্রেন ছেড়ে যায়। শিডিউল অনুযায়ী সাড়ে ১২টায় ঢাকার উদ্দেশে ট্রেন ছাড়ার কথা ছিল। তবে এই ঘটনা চুরি না কি অন্য কোনো কারণ আছে, তা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে স্টেশন মাস্টারের।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন রামু উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ফাহমিদা মোস্তফা ও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু তাহের দেওয়ানসহ প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

ওসি আবু তাহের বলেন, ‘প্রশাসনের কর্মকর্তারাসহ পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। আমরা এসে রেললাইনের বিটের নাট-বল্টু খুলে ফেলা অবস্থায় দেখতে পেয়েছি।’

ঘটনাটি চুরি না কি, অন্য কোনো উদ্দেশ্যে সংঘঠিত– এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘ঘটনাটি কারা, কী উদ্দেশ্যে সংঘটিত করেছে এবং যারা জড়িত, তাদের শনাক্ত করে বের করতে পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *