ঢাকা, মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ১০:৩৪ পূর্বাহ্ন
আবারও ‘হেরেছেন’ ইসহাক
উখিয়া নিউজ ডেস্ক :

পিতৃপরিচয় নিশ্চিত করার আন্দোলনের অংশ হিসেবে আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কক্সবাজার-৪ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছিলেন আব্দুর রহমান বদিকে বাবা দাবি করা যুবক মোহাম্মদ ইসহাক। কিন্তু যাচাই-বাছাইয়ে প্রার্থিতা বাতিল হওয়ায় পিতৃপরিচয়ের আন্দোলনে ফের হেরে গেছেন বলে দাবি করেন তিনি। জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা সূত্রে জানা যায়, মোট ভোটারের এক-শতাংশ যে স্বাক্ষর জমা দেওয়া হয়েছে তা সঠিক না হওয়ায় ইসহাকের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়।

কিন্তু মোহাম্মদ ইসহাকের দাবি এর পেছনেও রয়েছে ষড়যন্ত্র। তিনি বলেন, ‘আমার পিতা আবদুর রহমান বদি সাবেক সংসদ সদস্য। ওই আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য আমার ছোট মা শাহীন আক্তার আবারও আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়নে নির্বাচন করছেন। গত ২ বছর আগে দায়ের যে মামলাটি আদালতে বিচারাধীন রয়েছে। বাবা একজন সাবেক সংসদ সদস্য ও প্রভাবশালী রাজনৈতিক নেতা। ছোট মা শাহীন আক্তার বর্তমান সংসদ সদস্য। তারা উভয়ে প্রভাব খাটানোর কারণে আদালতে মামলাটির দীর্ঘসূত্রতা হচ্ছে। ফলে আমি ন্যায়বিচার পাচ্ছি না। তাই একই আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে জনগণকে এ বিষয়ে সচেতন ও জনমত তৈরি করতে চেয়েছিলাম। কিন্তু তাতেও হেরে গেলাম।

ইসহাক বলেন, আমি যে ভোটারদের স্বাক্ষর সংগ্রহ করেছি তা ঘরে ঘরে গিয়ে স্বাক্ষর নিয়েছি। যা আমার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ভিডিও আকারে শেয়ার করেছি। মূলত আমার পিতা অত্যন্ত শক্তিশালী প্রভাবশালী ব্যক্তি। যারা আমার পক্ষে স্বাক্ষর করেছেন তাদের ডেকে নিয়ে গিয়ে হুমকি প্রদান করেছেন। ফলে যারা স্বাক্ষর দিয়েছেন তারা এখন অস্বীকার করছেন। মূলত আমাকে সন্তান হিসেবে স্বীকৃতি প্রদান করতে রাজি নন তিনি (বদি)। ফলে যা যা করার তাই করছেন। অথচ আমি আদালতে বার বার বলে আসছি ডিএনএ পরীক্ষা করে যদি আবদুর রহমান বদি আমার পিতা প্রমাণ না হয় তাহলে আমি আদালতের দেওয়া সকল প্রকার শাস্তি মেনে নেব।

কক্সবাজারের টেকনাফ পৌরসভার কায়ুকখালী পাড়ার ইসহাক ২০২১ সালের ১৩ ডিসেম্বর কক্সবাজার-৪ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য আব্দুর রহমান বদিকে নিজের বাবা দাবি করে মামলা দায়ের করেছিলেন। গত ২ বছর ধরে আদালতে দায়ের করা মামলাটি বিচারাধীন রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *